অ্যাভেঞ্জার্সের লোগো সহ লঞ্চ হল Oppo Reno 5 Marvel Edition

অ্যাভেঞ্জার্সের লোগো সহ লঞ্চ হল Oppo Reno 5 Marvel Edition

 

Oppo Reno 5 Marvel Edition

গত ডিসেম্বরে স্ন্যাপড্রাগন ৭৬৫জি প্রসেসরের সাথে লঞ্চ হয়েছিল Oppo Reno 5। এবার এই ফোনের Marvel Edition নিয়ে আসলো চীনা স্মার্টফোন কোম্পানিটি। অপ্পো রেনো ৫ মার্ভেল এডিশন ইউনিক ডিজাইন সহ বাজারে এসেছে। এই ফোনের পিছনে মাঝবরাবর আছে সিলভার ও রেড কালার টোনে অ্যাভেঞ্জার্সের (Avengers) লোগো। এর পাশাপাশি আছে রেড কালারের প্রোটেক্টিভে কেস সহ মার্ভেলের (Marvel) লোগো। এছাড়াও সিম এজেক্টর টুল ও ফোনের অন্যান্য অংশেও অ্যাভেঞ্জার্সের লোগো দেখা গেছে। আসুন Oppo Reno 5 Marvel Edition এর দাম, লভ্যতা ও স্পেসিফিকেশন জেনে নিই।

Oppo Reno5 Marvel Edition price and availability 

অপ্পো রেনো ৫ মার্ভেল এডিশন আপাতত ইন্দোনেশিয়ায় লঞ্চ হয়েছে। এর দাম রাখা হয়েছে ৫,৭০০,০০০ ইন্দোনেশিয়ান রুপিয়া, যা প্রায় ৩৩,৫০০  টাকার সমান। আগামী ১৫ মার্চ Tokopedia থেকে ফোনটির সেল শুরু হবে।

যদিও সবাই এই ফোনটি কিনতে পারবেন না। অপ্পো-র এই ফোনটি কেনার জন্য ইউনিক কোডের প্রয়োজন। এই কোড পেতে অপ্পো ইন্দোনেশিয়ার ইনস্টাগ্রাম অ্যাকাউন্ট সহ অন্যান্য সোশ্যাল মিডিয়া অ্যাকাউন্ট ফলো করতে হবে। এই অ্যাকাউন্টগুলি থেকে সীমিত সময়ের জন্য কোড প্রদান করা হবে।

ইন্দোনেশিয়ার বাইরে Oppo Reno 5 Marvel Edition পাওয়া যাবে কিনা তা জানা যায়নি। তবে গত ফেব্রুয়ারিতে এই ফোনকে NBTC সার্টিফিকেশন সাইটে দেখা গিয়েছিল। ফলে বলা যায় ফোনটি অন্যান্য মার্কেটেও পাওয়া যাবে।

এদিকে  Oppo বিশ্বের জনপ্রিয় কসমিক বুক পাবলিশার, Marvel এর সাথে হাত মিলিয়ে কোনো ফোনের লিমিটেড এডিশন এনেছে। এর আগে ২০১৯ সালে Oppo তাদের F11 Pro ফোনের Avengers Limited Edition লঞ্চ করেছিল। মনে করিয়ে দেই ওইবছর বিশ্বের সর্বোচ্চ আয়কারী সিনেমার তকমা পেয়েছিল অ্যাভেঞ্জার্স: এন্ডগেম।

Oppo Reno5 Marvel Edition এর স্পেসিফিকেশন

অপ্পো রেনো ৫ মার্ভেল এডিশন এর স্পেসিফিকেশন যদিও কোম্পানি শেয়ার করেনি। তবে আমাদের অনুমান ফোনটির ডিজাইন ছাড়া ফিচারে কোনো পরিবর্তন থাকবেনা। সেক্ষেত্রে এই ফোনে ৬.৪৩ ইঞ্চি ফুলএইচডি প্লাস (২৪০০x১০৮০ পিক্সেল) ওলেড ডিসপ্লে থাকতে পারে। আবার পাওয়ার ব্যাকআপের জন্য থাকতে পারে ৬৫ ওয়াট সুপারভোক ফাস্ট চার্জ সাপোর্টযুক্ত ৪৩০০ এমএইচ ব্যাটারি। সেলফি ও ভিডিও কলিংয়ের জন্য এতে পাওয়া যেতে পারে ৩২ মেগাপিক্সেল ফ্রন্ট ক্যামেরা। আবার পিছনে ৬৪ মেগাপিক্সেল প্রাইমারি সেন্সর + ৮ মেগাপিক্সেলের আল্ট্রাওয়াইড-অ্যাঙ্গেল লেন্স + ২ মেগাপিক্সেলের ম্যাক্রো সেন্সর + ২ মেগাপিক্সেলের পোর্ট্রেট ক্যামেরা কোয়াড ক্যামেরা দেখা যেতে পারে।

Previous Post
Next Post

post written by:

0 Comments: